জেনারেশন আমি মুভি রিভিউ সাথে লিংক | বাবা-মা এবং শিক্ষার্থী সকলের জন্য শিক্ষনীয় মুভি | মাস্ট ওয়াচ সিনেমা।

       

জেনারেশন আমি মুভি রিভিউ + লিংক | বাবা-মা এবং শিক্ষার্থী সকলের জন্য শিক্ষনীয় মুভি।

* মুভি: জেনারেশন আমি
* বছর: ২০১৮
* আইএমডিবি: ৭.৬/১০
* ধরন: ড্রামা

সাধারণত বাংলা মুভি খুব বেশি একটা দেখা হয়না। তবে এই মুভিটা একেবারে ব্যতিক্রম। কলকাতার মুভি বলেন নাক সিঁটকানোর কোন দরকার নেই। কলকাতার টিপিকাল মুভির মতো এটা না। এই মুভি আমাদের সকলের জন্য একটি শিক্ষা তার সাথে আমাদের বাবা মার জন্যও।

মুভিটি শুরু হওয়ার প্রথম পাঁচ মিনিটের মধ্যেই আপনাকে অ্যাট্রেক্টিভ করে দিবে। আপনি যদি ড্রামা লাভার হয়ে থাকেন তাহলে এই মুভি জীবনেও আপনাকে নিরাশ করবে না। মুভির প্রতিটা মুহূর্ত আমেজের মধ্যে কাটবে।

Story:
ছবিতে দুই চাচাতো ভাই বোনের চরিত্র বেশি প্রাধান্য পেয়েছে। দুর্গা বাবা-মায়ের বিচ্ছেদ হওয়া মেয়ে যে দিল্লিতে বসবাস করে এবং একজন ডিপ্রেশনের রোগী।

সেইসাথে রগচটা এবং জেদি স্বভাবের। এদিকে অপুর স্বপ্ন গান গাওয়া তবে বাবা-মায়ের অতিরিক্ত শাসন দুশ্চিন্তা তাকে কাহিল করে দিয়েছে। এমনকি তার স্বপ্নের কথা।

অপু তার বাবা-মাকে বলতে ভয় পায় কারণ সে জানে তার বাবা-মা তার স্বপ্নকে কখনো সত্যি হতে দিবে না।

সারাদিন পড়াশোনা টিউশনের চাপে তার স্বপ্ন প্রায় চাপা পড়ে গিয়েছে।

এই সিনেমাটা আমাদের সকলের জন্য একটা শিক্ষা।
পরিচালক খুব সুন্দর ভাবে সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন মুভি প্রতিটা মুহূর্ত মন মুগ্ধকর।

বর্তমান বাবা মায়েরা যেমন সন্তানকে স্বাধীনতা দেয় না।

জেলখানার মতো মুখ গুঁজে সব সময় পড়াশোনা করতে হয় টিউশনি করতে হয় নিজস্ব কোন স্বাধীনতা থাকে না।

থাকেনা খেলাধুলার সুযোগ সুবিধা। বাবা-মার জোর জবরদস্তি নিজের স্বপ্নের কথাও বর্তমান ছেলেমেয়েরা মুখ খুলে শেয়ার করতে পারে না।

এই সকল কিছুর বিরুদ্ধে এই সিনেমাতে বলা হয়েছে।
বাস্তবের সাথে এই সিনেমায় দেখানো সবকিছুই মিল পাবেন সেটা আমি গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি।

সিনেমাটিতে খুব সাবলীলভাবে আমাদের শিক্ষাব্যবস্থা এবং আমাদের বাবা মায়ের অবস্থা তুলে ধরা হয়েছে। মুভিটা বাবা-মা সহ সকলের জন্য মাস্ট ওয়াচ।
স্ক্রিনশট:

সরাসরি গুগোল ড্রাইভ লিঙ্ক দিয়ে দিলাম।
Size: 700MB

লিংক:
Google Drive

Thanks for viewing our blog’s first post.

   

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.

You may also like